ইউটিউবের অ্যাড মনেটাইজেশনে নতুন আপডেট আসুন বিস্তাররিত জেনে নেই !!

গতকাল অর্থাৎ ১৬ই জানুয়ারি, ২০১৮ তারিখে ইউটিউব তাদের অ্যাড মনেটাইজেশন সিস্টেমে নতুন একটি আপডেট এনেছে। কিছুদিন আগেও এমন একটা অবস্থা ছিল যে, যে কেউ কোন ভাবে ইউটিউব একাউন্ট করে চ্যানেল বানিয়ে ভিডিও দিয়েই সেটা Ad Monetization  চালু করে দিত কিন্তু গতবছর হুট করেই ইউটিউবের কাছ থেকে একটা সিদ্ধান্ত আসে যে অন্তত ১০ হাজার ভিউ ছাড়া Ad Monetization  করা যাবেনা কোনও চ্যানেলের ভিডিও! ইয়উটিউবের ভাষ্যমতে গত ২০১৭ সালের নভেম্বর মাসে প্রায় ২০ লাখ ভিডিও এবং ৫০ হাজার চ্যানেল থেকে অ্যাড সরিয়ে নেয় অনুন্নত কন্টেন্টের কারণে। সেই সাথে প্রায় ১ লাখ ৫০ হাজার ভিডিও ইউটিউর রিমুভ করে দেয় এবং ৬ লাখ ২৫ হাজার ভিডিওর কমেন্ট ডিজ্যাবল করে দেয় শুধু মাত্র বাচ্চাদের জন্য বিপদজনক ভিডিও হিসেবে চিন্হিত করে।

মজার ব্যপার হচ্ছে, এতেও নাকি ইউটিউব নিজের কোয়ালিটি মেইন্টেইন করতে পারছেনা তাই গত ১৬ই জানুয়ারির, ২০১৮ এর আপডেটে নিয়ে এসেছে অনেক অভাবনীয় কিছু জিনিস।এই আপডেট যেমন প্রচুর কন্টেন্ট ক্রিয়েটরদের হতাশ করেছে ঠিক তেমনি অনেক ক্রিয়েটরদের জন্য বর হয়ে এসেছে!

চলুন জেনে নেই কি এসেছে  YouTube New Rules on Ad Monetization এই আপডেট?

১। সর্বশেষ ১২ মাসে অন্তত ১ হাজার সাবস্ক্রাইবার থাকতে হবে।

২। এই সময়ে অন্তত ৪ হাজার মিনিট ওয়াচটাইম থাকতে হবে।

নতুন এই আপডেটটি ফেব্রুয়ারির ২০ তারিখের আগে সব চ্যানেলের জন্য কার্যকর হবে। নিচের লিংক গুলো থেকে এই আপডেটের সত্যতা যাচাই করে নিতে পারেনঃ

https://youtube-creators.googleblog.com/2018/01/additional-changes-to-youtube-partner.html

https://www.bloomberg.com/news/articles/2018-01-16/google-tightens-youtube-rules-to-clean-it-up-for-advertisers

https://www.cnet.com/news/youtube-adds-stricter-rules-for-creator-ad-monetization/

YouTube tightens the rules around creator monetization and partnerships

মজার ব্যপার হচ্ছে ইউটিউব কিছুদিন পর পরই তাদের কমিউনিটি গাইডলাইন এবং রুলসে পরিবর্তন করে কারণ সে কখনই চায় না কোনও ধরণের ম্যানুপুলেশনের কারণে ইন্টারনেট ইউজাররা তাদের কাছ থেকে মুখ ফিরিয়ে নিক। ইউটিউব যেভাবে তার ইউজারের কথা ভাবে ঠিক সেভাবেই অ্যাডভারটাইজারের কথাও মাথায় রাখে কারণ অ্যাডসের রেভিনিউ ছাড়া সে বিজনেস করতে পারবেনা 🙂

যেখানে ইউটিউব চলছেই ইউজার জেনারেটেড কন্টেন্টের উপর ভিত্তি করে সেখানে সে সবসময়ই চাইবে যেন এই কন্টেন্টের মান ঠিক থাকুক। কিন্তু দুঃখের ব্যাপার হচ্ছে কিছু ইউজার খুব বাজে ধরণের কন্টেন্ট প্রডীউস করে ইউটিউবের মান নষ্ট করতে চলেছে এবং সে জন্যই ইউটিউব থেকে অনেক বড় বড় অ্যাডভারটাইজাররা মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছে!

অগত্যা ইউটিউব বাধ্য হয়েছে এসব বাজে কন্টেন্ট ক্রিয়েটরদের চ্যানেল এবং ভিডিও রিমুভ করতে। এটা যেমন ইউটিউবের কন্টেন্ট কোওয়ালিটি বাড়াবে ঠিক তেমনি সিরিয়াস এবং প্রফেশনাল কন্টেন্ট প্রডিউসারদের আরও বেশি ভ্যালু অ্যাড করতে সাহায্য করবে।

যারা কন্টেন্ট ক্রিয়েটর তারা তাদের ভিউওয়ারদের কে ভ্যালু দেয়ার জন্য কন্টেন্ট বানাবেন এবং টিকে থাকবেন। কিন্তু যারা খুব সহজেই টাকা উপার্জনের জন্য শর্টকাট মেথড ফলো করে ইউটিউবে আসবে তাদের জন্য এটা অভিশাপ হয়ে উঠেছে। অন্তত অ্যাড দেখিয়ে তারা উপার্জন করতে পারছেনা আপাতত!

মানুষের লাইফস্টাইলকে ইজি করবে, ইনফোটেইন্মেন্টের মাধ্যমে তাদেরকে ভ্যালু দিবে এমন কন্টেন্টকে সবসময় সবাই রেস্পেক্ট করে এবং ইউটিউব তাদেরকে রিওয়ার্ড দেয়। একজন মার্কেটার হিসেবে আমি সবসময়ই এমন কন্টেন্ট বানানোর জন্য তাগিদ দেই সবাইকে।

সস্তা টাপের কন্টেন্ট বানিয়ে হয়তো কোনওভাবে একজন ভিওয়ারকে আপনার ভিডিওতে নিয়ে আসবেন ঠিকি কিন্তু দিন শেষে তার কাছ থেকে কিছুই পাবেন না।

 

Post Courtesy || Niravasif Official Blogs 

Facebook Comments

Leave a Reply